দান করা/সেবামূলক কাজ করা অনেক ভাল ও পুণ্যের কাজ, এটা আমরা সবাই জানি।
কিন্তু আমরা তা সব সময় করতে পারি না।

কারণ, আমরা সব সময় চিন্তা করি আজ নয় কাল করবো।

আজ আমি স্টুডেন্ট, আমার টাকা নাই। যেদিন চাকরি করবো/আয় করবো সেদিন থেকে শুরু করবো।

যখন চাকরিতে যোগদান করেন, তখন ভাবেন এখন তো আমার আয় খুব কম আয় রোজগার আরেকটু বাড়ুক, তারপর করবো।

যখন আপনি বেশ কিছু টাকা আয় করে লাখপতি হয়ে যান, তখন ভাবেন সবে তো মাত্র কিছু টাকার মালিক হয়েছি। কোটিপতি হয়ে নেই তারপর দুহাত ভরে মানুষকে দান করবো।

এরপর একটা সময় আপনার নিজের বাড়ি হয়, আপনি তখন ভাবেন, আরেকটা বাড়ি আর গাড়ি করে নেই। তারপর মানুষের কল্যাণে কাজ করবো।

এভাবে চলতে চলতে একটা সময় আপনি দেখবেন, আপনার জীবনের অনেকগুলো সময় পার হয়ে গেছে। বয়সের ভারে আপনি মৃত্যুর দ্বারপ্রান্তে। তখন আর আপনার কাছে আর পর্যাপ্ত সময় আর শারীরিক সামর্থ নেই মানুষের জন্য ভাল কিছু করার।

এভাবেই বেশিরভাগ মানুষের জীবন কেটে যায়।

আল্লাহ আমাদের বলেছেন, তোমার যদি ১০০ টাকা থাকে তুমি সেখান থেকে ১টাকা দান করো। এভাবে দানের অভ্যাস করলে দুনিয়া ও আখিরাতে শান্তি পাওয়া যায়।

কিন্তু আমাদের সমাজে এই চর্চাটুকু না থাকায় আজ এত শ্রেণিবৈষম্য। ইসলামে যাকাত একটি গুরুত্বপূর্ণ স্তম্ভ। আপনার প্রত্যেকটি আয়ের মাঝে গরীব মানুষের হক রয়েছে। গরীব মানুষের হক যারা বুঝিয়ে দিতে অস্বীকার করে তাদের আখিরাত ভাল হবে না।

নিজেকে প্রশ্ন করুন, আল্লাহ আমাদের পৃথিবীতে অন্য কোন প্রাণী রূপে না পাঠিয়ে, কেন সৃষ্টির সেরা জীব মানুষ রূপে পাঠিয়েছেন। এর সঠিক উত্তরটি খুজে পেলে আপনি আর পথভ্রষ্ট হবেন না।

Write your Comment :
সময় থাকতে দান করুন, এ সুযোগ আর নাও পেতে পারেন
Share This :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *